কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস (Kurigram Express) ট্রেনের সময়সূচী, ভাড়ার তালিকা এবং বিস্তারিত তথ্য

আজকে আমরা জানাবো, বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা টু কুড়িগ্রাম, কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা, সময়সূচী এবং বিস্তারিত। কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস বাংলাদেশ রেলওয়ে পরিচালিত ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটে চলাচলকারী একটি নতুন আন্তঃনগর ট্রেন। কুড়িগ্রাম বাসি ঢাকার সাথে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেনের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছে। ট্রেনটির সাহায্যে উত্তরবঙ্গের সাথে ঢাকার যোগাযোগ আরো উন্নত হয়েছে। 16 অক্টোবর 2019 সালের রোজ বুধবার প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে এই ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

  • পরিষেবা ধরন – আন্তঃনগর ট্রেন
  • বর্তমান পরিচালক – বাংলাদেশ রেলওয়ে, পশ্চিমাঞ্চল
  • পথ যাত্রা – কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন
  • শেষ যাত্রা – কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন
  • দূরত্ব – ৪০৫ কিলোমিটার (২৫২ মাইল)
  • গড় যাত্রার সময় – 10 ঘণ্টা 10 মিনিট
  • পরিষেবা ফ্রিকোয়েন্সি – ৬ দিন
  • অপারেটিং গতি – ৯৫ কিলোমিটার পার ঘন্টা

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি ও সিট সংখ্যাঃ

এই ট্রেনের বগি রয়েছে ১৪টি, ২ টি সিনিগ্ধা, ১ টি এসি ৮টি শোভন চেয়ার এবং ট্রেনের মাঝামাঝি স্থানে একটি পাওয়ার কার রয়েছে। ট্রেনটির কার্ড যুক্ত ২টি খাবার বগি রয়েছে। ট্রেনটিতে ডাবল সিঙ্গেল কেবিন এর সুবিধা রয়েছে। ঢাকা যাওয়ার সময় এর আসন সংখ্যা ৬৫৭ টি। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অতিরিক্ত বগি সংযোজন করা হয়। নামাজের জন্য আলাদা জায়গা বরাদ্দ রয়েছে। মালামাল পরিবহন বহনের জন্য বড় স্টেশন গুলিতে রয়েছে কুলির ব্যবস্থা।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসট্রেনের খাবার ব্যবস্থাঃ

আন্তঃনগর ট্রেনগুলোতে খাবারের গাড়ি সংযোজন করা থাকে। এখানে বার্গার, স্যান্ডউই্‌, রুটি চা কফি, সিদ্ধ ডিম, কাবাব সিঙ্গারা-সামুচা নানান ধরনের কোমল পানি ও মিনারেল ওয়াটার পাওয়া যায় এছাড়া দৈনিক পত্রিকা ও ম্যাগাজিন পাওয়া যায়।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেন যাত্রার সময়সূচীঃ

  • ঢাকা থেকে ছেড়ে যায় রাত .৮ টা ৪৫ মিনিট্‌, কুড়িগ্রাম পৌঁছে সকাল ৬ টা ১৫ মিনিটে। বন্ধের দিন বুধবার।
  • কুড়িগ্রাম থেকে ছেড়ে যায় সকাল ৭ টা ১৫ মিনিটে, ঢাকা পৌঁছায় বিকেল ৫ টা ২৫ মিনিটে। বন্ধের দিন বুধবার।

ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম গামী ট্রেনটি বিরতি স্থান এবং সময়ঃ

আপনি যদি ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস এ ট্রেনের বিরতি সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আপনাকে জেনে রাখি কয়েকটি স্টেশনে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিরতি নিয়ে থাকে। মোট ১০ টি স্টেশনে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিরতি নিয়ে থাকে। কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি যেসব স্টেশনে ভিডিওতে নিয়ে থাকে সকল স্টেশনের সময় এবং স্টেশন এর নামগুলো আমরা নিচে সংযুক্ত করলাম।

কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকা গামী ট্রেনটি বিরতি স্থান এবং সময়ঃ

আপনি যদি কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকায় কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেন ভ্রমণ কালের সময় যেসব স্টেশনে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিরতি নিয়ে থাকে সকল স্টেশনের নাম এবং সময় গুলো আমরা ছবির মাধ্যমে প্রকাশ করছি। আবার আপনি চাইলে যে স্টেশনগুলোতে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিরতি নিয়ে থাকে সেসব স্টেশনে টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকাঃ

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি মোট চারটি শ্রেণী রয়েছে। যেহেতু এই ট্রেনটি অত্যাধুনিক এবং বিলাসবুর ট্রেন। তাই আপনি এই ট্রেনটিতে সব রকমের সুযোগ-সুবিধা পেয়ে যাবেন। আমরা আপনাদের সুবিধার্থে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটির চারটি শ্রেণীর টিকিটের মূল্য নিচে সংযুক্ত করছি। যতক্ষণে আপনি নিচে একটু দেখতে পারবেন কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি যে সব স্টেশন থেকে টিকিট পাওয়া যায় সেসব স্টেশনের মূল্য তালিকা প্রদান করছি।

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের অনলাইন টিকিট বুকিং সুবিধা

আপনি যদি চান কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি অনলাইন টিকিট বুকিং করতে। তাহলে ডিজিটাল platform এ কয়েকটি মাধ্যমে আপনি অনলাইনে টিকিট ক্রয় বা বুকিং করতে পারবেন। প্রথমত আপনি চাইলে বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন। অথবা রেল সেবা একটি এপ্লিকেশন রয়েছে যেটি গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে আপনার নামে রেজিস্ট্রেশন একটি একাউন্ট খুলে যে কোন ট্রেনের অনলাইন টিকিট বুকিং করতে পারবেন।

পরিশেষে বলা যায় আমরা চেষ্টা করেছি কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটির সকল প্রকার তথ্য আপনাকে সামনে উপস্থাপন করতে। এরপরেও যদি আপনাদের কোন মতামত থেকে থাকলে এই ট্রেনটির সম্পর্কে তাহলে অবশ্যই সেটা আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button